ভূঞাপুরে দুই ভুয়া চিকিৎসককে অর্থদন্ড, অবৈধ ওষুধ ধ্বংস

নিজস্ব প্রতিবেদক : টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে দুইজন ভুয়া চিকিৎসককে অর্থদন্ড করেছে ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ঝোটন চন্দ। এছাড়া বিপুল পরিমান অবৈধ ওষুধ জব্দ করে ধ্বংস করা হয়েছে।
আজ বৃহস্পতিবার উপজেলার নিকরাইল ইউনিয়নের নলুয়া গ্রামের মৃত জাহিদুল ইসলামের ছেলে ভুয়া চিকিৎসক নাজমুল ইসলামকে ৫০ হাজার ও অলোয়া ইউনিয়নের আকালু গ্রামের সাইফুল ইসলামের ছেলে জাকির হোসেনকে এক হাজার টাকা অর্থদন্ড অনাদায়ে এক মাসের কারাদন্ড প্রদান করা হয়।

জানা গেছে, উপজেলার নলুয়া গ্রামের দাখিল পাস করা ভুয়া চিকিৎসক নাজমুল ইসলাম এলাকায় দীর্ঘদিন যাবৎ সাধারন রোগীদেরকে বাড়িতে বসেই ডায়াবেটিকস, জন্ডিসসহ জটিল রোগের পরীক্ষা-নিরীক্ষা করতেন। পরে রোগী অনুযায়ী চিকিৎসাপত্রে এলোপ্যাথিক ও হোমিওপ্যাথিক ওষুধ লিখে দিতেন। এর বিনিময়ে রোগীদের কাছ থেকে হাতিয়ে নিতেন বিপুল অঙ্কের টাকা। তার এই চিকিৎসা কাজে দুইজন সহযোগি থাকতেন। যার একজন জাকির হোসেন হোমিওপ্যাথিক বিভাগ দেখাশুনা করতেন। ভুয়া চিকিৎসক নাজমুল ইসলামের চিকিৎসা ও তার দেয়া ব্যবস্থাপত্রের ওষুধ খেয়ে অনেক রোগী নতুন মরণব্যাধি রোগে ভুগছে। বৃহস্পতিবার ভুয়া চিকিৎসক নাজমুলের গ্রামের বাড়ি নলুয়ায় অভিযান চালিয়ে অবৈধ ওষুধ জব্দ ও নাজমুলসহ দুইজনকে আটক করা হয়। পরে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে নাজমুলকে ৫০ হাজার ও জাকির হোসেনকে এক হাজার টাকা অর্থদন্ড অনাদায়ে এক মাসের কারাদন্ড প্রদান করা হয়। এছাড়া নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নিকট ভবিষ্যতে আর চিকিৎসাসহ অবৈধ কাজ করবে না মর্মে মুচলেকা দিয়েছে।
অভিযোগ আছে, প্রভাবশালীদের ছত্রছায়ায় এলাকায় ভুয়া চিকিৎসক নাজমুল চিকিৎসা কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে দীর্ঘদিন ধরে। এমন কি মোবাইল কোর্ট চলাকালীন বিভিন্ন মহল থেকে ছাড়িয়ে নিতে তদবির আসে বলে বিভিন্ন সুত্রে জানা যায়।

অন্যদিকে ভূঞাপুর বাজারস্থ রমজান আলী মিষ্টান্ন ভান্ডারকে ৫শ টাকা ও জয়কালী মিষ্টান্ন ভান্ডার ৫শটাকা অর্থদন্ড প্রদান করা হয়েছে।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ঝোটন চন্দ জানান, দীর্ঘদিন ধরে ভুয়া চিকিৎসক নাজমুল ইসলামসহ তার সহযোগিরা অবৈধ চিকিৎসা কার্যক্রম ও ওষুধ বিক্রি করছিল। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে নলুয়া গ্রামে নাজমুলের চেম্বারে অভিযান চালিয়ে তাকেসহ দুইজনকে আটক করা হয়। এসময় বিপুল পরিমাণ অবৈধ ওষুধ জব্দ করা হয়। পরে জব্দকৃত ওষুধ ধ্বংস ও আটককৃতদের অর্থদন্ড প্রদান করা হয়েছে।

Related Articles