সখীপুরে জুয়ার আসর থেকে গ্রেফতার ৭, এমপি’র ভাইসহ ৯ জনের নামে মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক : টাঙ্গাইলের সখীপুরে জুয়ার আসর থেকে সাত জুয়াড়িকে গ্রেফতার করেছে জেলা গোয়োন্দা পুলিশ (ডিবি)। বুধবার রাতে সখীপুর পৌর এলাকার মহিলা কলেজ সড়কের সানবান্ধা এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হচ্ছেন আবদুল মালেক (৫৬), ইমান আলী (৪৫), আল মামুন (২৫), শহিদ মিয়া (৪০), আনোয়ার হোসেন (৪৫), রাসেল আহমেদ ওরফে রায়হান (৩০) ও মকবুল হোসেন (৩২)। এসময় আরো দু’জন পালিয়ে যায়। তারা হলেন এমপি অনুপম শাহজাহান জয়ের ফুফাতো ভাই গোলাম সরওয়ার শিম্মী এবং চাচাতো চাচা তাইজ উদ্দিন তালুকদার (৫০)।

টাঙ্গাইল গোয়ন্দা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) (উত্তর) আবু ওবায়দা খান জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গোয়েন্দা পুলিশ উপজেলার সানবান্ধাা এলাকায় অভিযান চালায়। সেখানে একটি ঘরে জুয়া খেলার সময় ওই সাতজনকে গ্রেফতার করা হয়। এছাড়া গোয়েন্দা পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে আরো দুইজন পালিয়ে যায়। এ সময় গ্রেফতারকৃতদের কাছ থেকে জুয়া খেলার সরঞ্জামাদিসহ নগদ এক লাখ ৪০ হাজার উদ্ধার করা হয়।

এ ব্যাপারে গোয়েন্দা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) শরীফ উদ্দিন ভূঞা বাদী হয়ে সখীপুর থানায় মামলা দায়ের করেছেন।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয় কয়েকজন এলাকাবাসী জানান, দীর্ঘদিন ধরেই সখীপুরে জুয়া খেলার আসর চলে আসছিল। আর এই জুয়ার আসরের মূলহোতা এমপি’র আপন ফুফাতো ভাই গোলাম সরওয়ার শিম্মী।

এর আগে প্রকাশ্যে কেউ মুখ না খুললেও গোলাম সরওয়ার শিম্মীর নামে গোয়েন্দা পুলিশের পক্ষ থেকে মামলা হওয়ায় এখন অনেকের মুখে মুখে জুয়া খেলার বিষয় নিয়ে সমালোচনা শুরু হয়েছে।

এদিকে জুয়ার আসর থেকে সখীপুর পৌরসভার সাবেক মেয়র সানোয়ার হোসেন সজীব, ৪ নম্বর ওয়ার্ডের বর্তমান কাউন্সিলর আসাদুজ্জামান মিল্টন এবং কালিহাতী উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল মজিদ তোতার ছেলে যুবলীগ নেতা শামীমকে আটক করা হলেও তাদের রাতেই ছেড়ে দেয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে ওসি আবু ওবায়দা খান জানান, তাদের ডিবি কার্যালয়ে আনা হয়েছিল কিন্তু জুয়া খেলার সঙ্গে সম্পৃক্ততা না থাকায় তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

Related Articles