আওয়ামীলীগের জন্মদাতার মধ্যে আমিও একজন : লতিফ সিদ্দিকী

নিজস্ব প্রতিবেদক : বহিস্কৃত আওয়ামীলীগ নেতা আবদুল লতিফ সিদ্দিকী বলেছেন, আমিও আওয়ামীলীগ ছাড়িনি, আওয়ামীলীগও আমাকে ছাড়েনি

আওয়ামীলীগের জন্মদাতার মধ্যে আমিও একজন।

কোন এক সাংবাদিক লিখেছে আমি নাকি বহিস্কৃত আওয়ামীলীগ নেতা।

সন্তানকে বকাঝকা করে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেয়। তাই বলে কি মা সন্তানকে মন থেকে তাড়িয়ে দেয় না।

১৯৭৫ সালের ১৫ আগষ্ট বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর এবং ১/১১ সময়ে অনেককেই খুঁজে পাওয়া যায় নি। আমি বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আজও দৃঢ় বিশ্বাসী। শেখ হাসিনার চেয়ে যোগ্য নেতা বাংলাদেশে আর নেই। আমাকে নেতার কাছে আনুগত্যের পরিচয় দিতে হবে না। আনুগত্যে আমি বঙ্গবন্ধুর কাছে গোল্ড মেডেল পেয়েছি, শেখ হাসিনার কাছেও গোল্ড মেডেল পেয়েছি।

শনিবার বিকেলে টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার বাংড়া ইউনিয়ন পরিষদের নব নির্বাচিত চেয়ারম্যান ও সদস্যদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

ওই সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকার কথা ছিল কালিহাতী আওয়ামীলীগের সভাপতি মোজহারুল ইসলাম তালুকদার ও সাধারণ সম্পাদক আনছার আলী বিকম কিন্তু আলোচনা সমালোচনায় তারা অবশেষে ওই অনুষ্ঠানে যোগ দেয়নি। আওয়ামীলীগ প্রার্থীকে পরাজিত করে স্বতন্ত্র প্রার্থী বাংড়া ইউনিয়ন থেকে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়। স্বতন্ত্র প্রার্থীর সংবর্ধনায় আওয়ামীলীগের নেতাদের অতিথি করায় ব্যাপক আলোচনা সমালোচনার সৃষ্টি হয়। সেই কারণে কালিহাতী আওয়ামীলীগের সভাপতি মোজহারুল ইসলাম তালুকদার ও সাধারণ সম্পাদক আনছার আলী বিকম সহ আওয়ামীলীগের মূল নেতাকর্মীরা অনুষ্ঠানে অংশ নেয়নি।

লতিফ সিদ্দিকী আরও বলেন, আওয়ামীলীগ থেকে কি কারণে বিতাড়িত বা বহিস্কৃত হয়েছি, কারাবরণ করেছি সেটা আমিই ভাল জানি। এর আগেও পাঁচ বার বহিষ্কার হয়েছি। কারো বিরুদ্ধে আমার কোন বিদ্বেষ নেই। নিজেদের মধ্যে ঝগড়া পছন্দ করি না। আগামী একাদশ সংসদ নির্বাচন সম্পর্কে তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর সাথে যেমন বাংলাদেশের সম্পর্ক তেমনই কালিহাতীর সাথে আমার সম্পর্ক। কালিহাতীর মানুষ আমাকে তৈরি করেছেন। রাজনীতি করি ক্ষমতার জন্য নয়, মানুষের সম্মান ও মুক্তির জন্য। তাই সময় ও জনগন সকল সিদ্দান্ত দিয়ে দিবেন। মোদ্দাকথা দেশ ও জাতির স্বার্থে শেখ হাসিনার কোন বিকল্প নেই।

ইছাপুর শেরে বাংলা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন কাদেরিয়া বাহিনীর বেসামরিক প্রধান, সাবেক সচিব ও রাষ্ট্রদূত আনোয়ার-উল-আলম শহীদ। এসময় বক্তব্য দেন লতিফ সিদ্দিকীর সহধর্মিনী সাবেক সংসদ সদস্য লায়লা সিদ্দিকী, টাঙ্গাইল জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আনিছুর রহমান আনিছ, কালিহাতী উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল মজিদ তোতা, সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন মোল্লা, এলেঙ্গা পৌরসভার নব নির্বাচিত মেয়র নূর-এ-আলম সিদ্দিকী ও বাংড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হাসমত আলী প্রমুখ। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গ সহযোগী সংগঠনগুলোর নেতাকর্মীসহ কয়েক হাজার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

Related Articles