মির্জাপুরে মাদক বিরোধী অভিযানে উদ্ধারকৃত টাকার অংক নিয়ে ভিন্ন মন্তব্য

মির্জাপুর প্রতিনিধি : টাঙ্গাইলের মির্জাপুর থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে ৭৫ লিটার চোলাই মদ ও টাকাসহ আব্দুস ছামাদ নামে এক মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃত আব্দুস ছামাদের স্ত্রী খুরশেদা বেগম জানিয়েছেন অভিযানের সময় পুলিশ তার স্বামীর কাছ থেকে এক লাখ ৬০ হাজার টাকা নিয়েছেন।

তবে পুলিশ বলছেন সামাদের কাছ থেকে মাদক বিক্রির ৫ হাজার ৩শ টাকা উদ্ধার করা হয়েছে।

বুধবার রাত এগারোটার দিকে মির্জাপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) সোহেল কদ্দুসের নেতৃত্বে ছামাদকে তার বসত ঘর থেকে মদ ও টাকাসহ গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃত আব্দুস ছামাদ পৌরসভার বাওয়ার কুমারজানী উত্তরপাড়া গ্রামের মৃত রইজ উদ্দিনের ছেলে।

জানা গেছে, আব্দুস ছামাদ দীর্ঘদিন যাবত বাড়িতে চোলাই মদ তৈরি করে বিক্রি করে আসছিল। গোপন সংবাদের ভিতি থানার উপ পরিদর্শক (এসআই) সোহেল কদ্দুছের নেতৃত্বে এএসআই দেলোয়ার ও সালাহ উদ্দিনসহ কয়েকজন কনস্টেবল বুধবার রাত এগারোটার দিকে ওই বাড়িতে অভিযান চালায়।

এ সময় ছামাদের বসত ঘর থেকে প্লাস্টিকের ১০টি কন্টিনার ও সিলভারের দুই পাতিল বোঝাই ৭৫ লিটার চোলাই মদ ও মদ তৈরির সরঞ্জামসহ তাকে গ্রেফতার করেন। ওই সময় পুলিশ ছামাদকে ছেড়ে দেয়ার কথা বলে তার সাথে এক লাখ টাকায় রফা করেন। পরে সামাদ রফাকৃত টাকা পুলিশ ও তার স্ত্রীর উপস্থিতিতে তার বসত ঘরের সুকেজ থেকে বের করতে যায়।

এসময় পুলিশ তার সুকেজে থাকা এক লাখ ৬০ হাজার টাকার পুরোটায় হাতিয়ে নিয়ে মদ ও মদ তৈরির সরঞ্জামসহ ছামাদকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসেন বলে ছামাদের স্ত্রী খুরশেদা বেগম সাংবাদিকদের জানিয়েছেন।

এদিকে স্থানীয় কয়েকজন সাংবাদিক থানায় গিয়ে গ্রেফতারকৃত ছামাদের সঙ্গে কথা বলতে চাইলে পুলিশ কথা বলার সুযোগ দেয়নি।

অভিযানে নেতৃত্ব দেয়া মির্জাপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) সোহেল কদ্দুস এক লাখ ৬০ হাজার টাকা নেয়ার কথা অস্বীকার করে জানান, ৭৫ লিটার চোলাই মদ, মদ তৈরির সরঞ্জাম ও মদ বিক্রির ৫ হাজার ৩শ টাকা উদ্ধার করা হয়েছে।

কিন্ত ওই অভিযানে অংশ নেয়া মির্জাপুর থানা এএসআই দেলোয়ার অভিযানে চোলাই মদ উদ্ধার করার কথা স্বীকার করে বলেন, কত টাকা উদ্ধার করা হয়েছে তা তিনি জানেন না বলে জানান। সিজার লিস্টের সময় আপনি ছিলেন না জানতে চাইলে বলেন কদ্দুস স্যার জানেন।

এ ব্যাপারে মির্জাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ কে এম মিজানুল হক মদ ও মদ তৈরির সরঞ্জাম উদ্ধারের কথা জানিয়েছে সাংবাদিকদের বলেন, টাকা নেয়ার কথা তার জানা নেই।

Related Articles