ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কে শিক্ষার্থীদের ঘন্টাব্যাপী অবরোধ

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজধানী ঢাকার কুর্মিটোলায় বাস চাপায় দুই শিক্ষার্থীকে হত্যার ঘটনায় জড়িতদের বিচার ও নিরাপদ সড়ক এবং নৌমন্ত্রীর পদত্যাগসহ নয় দফা দাবিতে ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়ক অবরোধ করে শিক্ষার্থীরা।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টা থেকে মহাসড়কের আশেকপুর বাইপাস এলাকায় ঘন্টাব্যাপী অবরোধ কর্মসূচিতে শহরের বিভিন্ন স্কুল কলেজের প্রায় দুই সহশ্রাধিক শিক্ষার্থী অংশ নেয়। এসময় বিভিন্ন প্লে-কার্ড ও ফেস্টুন নিয়ে শ্লোগানে শ্লোগানে মুখরিত করতে থাকে তারা। অবরোধ চলাকালে মহাসড়কের দুইপাশে শতশত যানবাহন আটকা পড়ে যানজটের সৃষ্টি হয়। এর ফলে দুর্ভোগ পোহাতে হয় সাধারণ যাত্রীদের।

কুমুদিনী সরকারি মহিলা কলেজের একাদশ শ্রেনীর শিক্ষার্থী সামিয়া রহমান জানায়, জড়িত বাস চালকের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি, নিরাপদ সড়ক ও নৌমন্ত্রীর অবিলম্বে পদত্যাগ চান তারা। অন্যথায় আগামীতে আরো কঠোর কর্মসূচি দেয়া হবে।

বিন্দুবাসিনী সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালযের শিক্ষার্থী রায়হান মিয়া ও সালেহ মোহাম্মদ জানায়, আগামী শনিবারের মধ্যে সরকারের পক্ষ থেকে সন্তোষজনক জবাব না পেলে রোববার আরো কঠোর কর্মসূচি দেয়ার ঘোষনা দেয় তারা।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে অবরোধকারীদের শান্তনা দেয়ার চেষ্টা করেন। পরে এক ঘন্টা পর পুলিশের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা দুপুর একটায় অবরোধ প্রত্যাহার করে নেয়।

এদিকে মহাসড়ক থেকে অবরোধ প্রত্যাহারের পর শিক্ষার্থীরা শহরে বিক্ষোভ মিছিল বের করে। এসময় তারা শহরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থান পুরাতন বাসস্ট্যান্ড ও নিরালার মোড়ে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ শুরু করে। এতে করে শহরে সকল প্রকার যানচলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এসময় স্থানীয় ব্যবসায়ী ও পথচারীদের মধ্যে আতংক দেখা দেয়।

টাঙ্গাইলের পুলিশ সুপার সঞ্জিত কুমার রায় মজলুমের কণ্ঠকে জানান, শিক্ষার্থীদের অনুরোধ করায় তারা অবরোধ কর্মসূচি থেকে সড়ে আসে। ভবিষ্যতে শিক্ষার্থীরা যাতে মহাসড়ক অবরোধ না করে এজন্য সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ জানানো হয়েছে।

Related Articles