দেলদুয়ারে পরকীয়ায় ধরা পরে গৃহবধুর আত্মহত্যার চেষ্টা: প্রেমিক শ্রীঘরে

দেলদুয়ার প্রতিনিধি : টাঙ্গাইলের দেলদুয়ারে পরকীয়া প্রেমে এলাকাবাসীর হাতে ধরা পরে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছে এক গৃহবধু। অপরদিকে পরকীয়া প্রেমিক ও তার দুই সহযোগিকে আটক করে পুলিশে দিয়েছে এলাকাবাসী। শুক্রবার গভীর রাতে ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার এলাসিন ইউনিয়নের সানবাড়ি গ্রামে।

জানা যায়, ওই গ্রামের প্রবাসী টুটুলের স্ত্রী দুই সন্তানের মা সখীনা বেগমের এক বছর আগে পরকীয়া সম্পর্ক গড়ে ওঠে পাছ-এলাসিন বেপারীপাড়ার আব্দুল জলিল বেপারীর ছেলে তিন সন্তানের জনক নূর আলমের সঙ্গে। গত দুই মাস যাবৎ রাতে নূর আলম সখীনার ঘরে ঘনঘন যাতায়াত করে। এ দৃশ্য দেখে এলাকার লোকেরা ওঁৎ পেতে থাকে হাতেনাতে ধরার জন্য। শুক্রবার গভীর রাতে তারা প্রেমিক নূর আলমকে সখীনার ঘরে ঢুকেছে নিশ্চিত হয়ে প্রতিবেশীদের সহায়তায় হাতেনাতে আটক করে। পরে বাহিরে পাহাড়ারত নূরআলমের সহযোগি আরো দুই যুবক মিলন বেপারী ও সেলিম সিকদারকেও আটক করে। শুক্রবার সকালে তাদের পুলিশে সোপর্দ করে। পুলিশ ৫৪ ধারায় মামলা দিয়ে তাদের আদালতে প্রেরণ করেছে। এদিকে শুক্রবার সকালে সখীনা ভাঙা কাঁচ দ্বারা নিজের তলপেটে আঘাত করে আত্মহত্যার চেষ্টা করে। স্থানীয় ইউপি সদস্য জান্নাত আরা সুরাইয়া তাকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেন।

এব্যপারে সখীনা বেগমের সঙ্গে তার মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে সে পরকীয়া প্রেমের কথা স্বীকার করে বলে, নূরআলম তার নিকট থেকে কয়েক দফায় ২ লাখ টাকাও নিয়েছে।

জানতে চাইলে থানার এসআই সাইফুল ইসলাম বলেন, আটক তিনজনকে ৫৪ ধারায় আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। নিয়মিত মামলা হয়নি।

Related Articles