সেতু’র আয়োজনে মেধাবী শিক্ষার্থীদের বৃত্তির চেক প্রদান

এস এম আওয়াল মিয়া : টাঙ্গাইলের পুলিশ সুপার সঞ্জিত কুমার রায় বলেছেন, আমাদের সন্তানদের সুশিক্ষায় শিক্ষিত করে গড়ে তুলতে হবে। শিক্ষার উন্নয়নের জন্য সবাইকে মিলেমিশে কাজ করতে হবে। আমরা দরিদ্র নই, আমরা মনের দীর্ঘ থেকে অনেক বড়। শিক্ষার্থীদের মেধা কাজে লাগাতে হবে।

তিনি আজ বুধবার সকালে টাঙ্গাইল প্রেসক্লাবের বঙ্গবন্ধু অডিটরিয়ামে সোসাল এডভান্সমেন্ট থ্রু ইউনিট (সেতু) সংস্থার উদ্যোগে ও পল্লী কর্ম-সহায়ক ফাউন্ডেশন (পি কে এস এফ)’র সহযোগিতায় সেতু’র ‘‘বুনিয়াদ’’ কার্যক্রমের আওতায় সংগঠিত অতি দরিদ্র পরিবারের মেধাবী সন্তানদের মাঝে শিক্ষা বৃত্তির চেক বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।
তিনি বলেন, দারিদ্র্য-ক্ষুধামুক্ত করার মূল হচ্ছে শিক্ষা। শিক্ষার উন্নয়নের জন্য আমাদের পরিবেশ দরকার। সমাজে সকল শ্রেণীর পেশার দরকার আছে। যে যে পেশায় আছে সেখান থেকে দেশের উন্নয়নে কাজ করতে হবে।

সঞ্জিত কুমার রায় সেতু’র এ কার্যক্রমকে প্রশংসা করে বলেন, আমাদের ভিতরে শিক্ষা থাকলে সমাজ ও দেশকে উন্নত করতে পারবো। আর সেই বিষয়েই সেতু কাজ করে আসছে। দেশের উন্নয়নে মানসম্মত শিক্ষার ব্যবস্থা করতে হবে। যে শিক্ষা আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃতি পায়। এ দেশের সন্তানরা খুবই মেধাবী। কিন্তু তাদের মধ্যে আর্থিক অস্বচ্ছলতা রয়েছে। তাদের পাশে আমাদের দাঁড়াতে হবে। প্রধানমন্ত্রী দেশকে অর্থনৈতিকভাবে উন্নয়নের জন্য পরিকল্পনা গ্রহণ করেছেন। তা বাস্তবায়ন হচ্ছে।
তিনি বলেন, আমরা মাদক, জঙ্গি থেকে দূরে থেকে দেশের উন্নয়নে একযোগে কাজ করবো।

তিনি বলেন, বাংলাদেশে যারা গাড়ীর চালক হিসেবে আছেন পৃথিবীর অন্য দেশের চেয়ে ন্যূনতম শিক্ষা রয়েছে। চালকদের সৎ ইচ্ছা থাকতে হবে। চালকরা শিক্ষিত থাকলে দুর্ঘটনা কমে যাবে। টাঙ্গাইল প্রেসক্লাব ও সেতু’র সভাপতি অ্যাডভোকেট জাফর আহমেদ-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন টাঙ্গাইল জেলা শিক্ষা অফিসের গবেষণা কর্মকর্তা মোঃ বায়েজিদ হোসেন ও টাঙ্গাইল ক্লাবের সহ-সভাপতি হারুন-অর-রশিদ। অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সেতু’র নির্বাহী পরিচালক মির্জা সাহাদত হোসেন। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন সরকারি এম এম আলী কলেজের ছাত্র হাবিব মিয়া ও ছাত্রী মোছাঃ আয়শা সিদ্দিকা। শেষে প্রধান অতিথি মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা বৃত্তির চেক বিতরণ করেন।

অনুষ্ঠানে সেতু ১২৭জন ছাত্রছাত্রীর প্রত্যেককে ১২ হাজার টাকা করে ১৫ লাখ ২৪ হাজার টাকার শিক্ষা বৃত্তির চেক প্রদান করেন। এ পর্যন্ত সেতু এ কার্যক্রমের আওতায় ৪০৫ শিক্ষার্থীর মধ্যে ৫৮ লাখ ৯৯ হাজার টাকা শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করেছে।

Related Articles