উৎসবের মধ্যদিয়ে কমিউটার ট্রেন বরণ করলেন টাঙ্গাইলবাসী (ভিডিও সহ)

নিজস্ব প্রতিবেদক : আনন্দ উৎসবের মধ্যদিয়ে টাঙ্গাইলবাসী বরণ করে নিয়েছে তাদের বহুল প্রতিক্ষিত কমিউটার ট্রেন। বৃহস্পতিবার ট্রেনটিকে স্বাগত জানাতে আসা হাজারো মানুষের মিলন মেলায় পরিনত হয়েছিল টাঙ্গাইল রেল স্টেশন।

গত বৃহস্পতিবার ঢাকার কমলাপুর রেল স্টেশনে বিকেল ৫টা ২০ মিনিটে ‘টাঙ্গাইল এক্সপ্রেস’ নামক নতুন এই কমিউটার ট্রেন সার্ভিসের উদ্বোধন করেন রেলমন্ত্রী মজিবুল হক।

পরে ট্রেনটি টাঙ্গাইলের উদ্দেশ্যে যাত্রা করে। টাঙ্গাইল-৫ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য ছানোয়ার হোসেন, ‘ঢাকা-টাঙ্গাইল ট্রেন সার্ভিস বাস্তবায়ন কমিটি’র আহবায়ক সাঈদ এম লুৎফুল্লাহসহ এই আন্দোলনের সাথে যুক্ত ব্যক্তিবর্গ ও সাধারণ মানুষও প্রথম ট্রেনে যাত্রী হিসেবে টাঙ্গাইলের উদ্দেশ্যে রওনা হন।

রাত আটটা ১০ মিনিটে টাঙ্গাইল এক্সপ্রেস স্টেশনে প্রবেশ করে। এ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে এমপি ছানোয়ার হোসেন, জেলা প্রশাসক মোঃ শহীদুল ইসলাম, পুলিশ সুপার সঞ্জিত কুমার রায়, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান খোরশেদ আলম, জেলা আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক তানভীর হাসান ছোট মনির, ‘ঢাকা-টাঙ্গাইল ট্রেন সার্ভিস বাস্তবায়ন কমিটি’র আহবায়ক সাঈদ এম লুৎফুল্লাহ, সদস্য সচিব সাজ্জাদ খোশনবীশ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। পরে এমপি ছানোয়ার হোসেন টাঙ্গাইল এক্সপ্রেস ট্রেনের প্রতিকী চাবি জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের হাতে তুলে দেন।

টাঙ্গাইল রেল স্টেশনের মাস্টার মো. জালাল উদ্দিন জানান, ‘টাঙ্গাইল কমিউটার’ নামের ওই ট্রেনে মোট নয়টি বগি রয়েছে। প্রতিদিন এক সাথে প্রায় ৬০০ মানুষ যাতায়াত করতে পারবে। প্রতিদিন সকাল ছয়টায় বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব রেল স্টেশন থেকে এটি যাত্রা করবে। টাঙ্গাইল স্টেশন থেকে ছাড়বে সকাল ছয়টা ২০ মিনিটে। ঢাকার কমলাপুর থেকে বিকেলে ৫টা ২০ মিনিটে বঙ্গবন্ধু সেতুর উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসবে। টাঙ্গাইল থেকে ঢাকার ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে মাত্র ৫০ টাকা।

টাঙ্গাইলের মানুষের দীর্ঘ দিনের দাবি ছিল ঢাকা-টাঙ্গাইল রুটে কমিউটার ট্রেন সার্ভিসটি চালুর। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০১২ সালে ভূঞাপুরের এক জনসভায় কমিউটার ট্রেন সার্ভিস চালুর প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। কিন্তু দীর্ঘ দিনেও এই সার্ভিস চালু না হওয়ায় ঢাকা-টাঙ্গাইল ট্রেন সার্ভিস বাস্তয়ন কমিটি গঠন করে টাঙ্গাইলের নাগরিক সমাজ। এই কমিটির উদ্যোগে ঢাকা-টাঙ্গাইলে মানববন্ধন, সমাবেশ, গণস্বাক্ষর অভিযানসহ বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করা হয়।

Related Articles