টাঙ্গাইলে গৃহবধু গণধর্ষন: রিমান্ড শেষে তিনজন কারাগারে

নিজস্ব প্রতিবেদক : টাঙ্গাইলে স্বামীকে পিটিয়ে স্ত্রীকে তুলে নিয়ে গণধর্ষনের ঘটনায় গ্রেপ্তারকৃত তিনজনকে রিমান্ড শেষে মঙ্গলবার কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।

এরা হলেন, শহরের কোদালিয়া এলাকার মৃত মজনু মিয়ার ছেলে মোঃ মফিজ (২১), রবিকুল ইসলামের ছেলে তানজীরুল ইসলাম ওরফে তাছিম ও দেওলা এলাকার আল বিরুনীর ছেলে ইব্রাহিম (২০)। মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তা সদর পুলিশ ফাঁড়ির দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা পরিদর্শক মোশারফ হোসেন জানান, তিনদিনের রিমান্ড শেষে টাঙ্গাইলের জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম সুমন কুমার কর্মকারের আদালতে হাজির করা হলে তিনি তাদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

এর আগে শনিবার এই ঘটনায় গ্রেপ্তারকৃত অপর তিন আসামী কোদালিয়া এলাকার আলম মিয়ার ছেলে ইউসুফ রানা (২৫), আব্দুর রশীদের ছেলে মোঃ রবিন (২৫) ও দেওলা এলাকার আবুল হোসেনের ছেলে জাহিদুল ইসলাম (২১) ঘটনার সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দেন।

মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তা জানান, মফিজ, ইব্রাহিম এবং তানজীরুল রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছেন। তাদের তথ্যের ভিত্তিতে এই মামলার পলাতক আসামী হাসান সিকদার ও উজ্জলকে গ্রেপ্তারে বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালানো হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে শহরের নুতন বাস টার্মিনাল এলাকায় এক দম্পতি তাদের কর্মস্থল মির্জাপুরের গোড়াই যাওয়ার জন্য যানবাহন খুঁজছিলেন। এসময় আটজন বখাটে স্বামীকে পাম্পের পিছনে নিয়ে মারপিট করে মুঠোফোন ও টাকাপয়সা নিয়ে নেয়। স্বামীকে মারপিট করা দেখে স্ত্রী এগিয়ে যান। ওই সময় বখাটেরা স্বামীর সামনেই স্ত্রীকে গণধর্ষন করে। পরে স্বামী টহলরত পুলিশকে বিষয়টি জানালে পুলিশ অভিযান চালিয়ে গৃহবধুকে উদ্ধার করে এবং এ ঘটনায় জড়িত ছয়জনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

Related Articles