টাঙ্গাইলে নারী পুলিশ কনস্টেবলের আত্মহত্যা

নিজস্ব প্রতিবেদক : টাঙ্গাইলে এক নারী পুলিশ কনস্টেবল ফাঁসি নিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। বুধবার (০৮ মে) দুপুরে তার লাশ পুলিশ লাইনের নারী কনস্টেবল ব্যারাক থেকে উদ্ধার করা হয়।

ফাঁসি নেয়া ওই পুলিশ সদস্যের নাম শারমিন আক্তার (২৪)। তিনি টাঙ্গাইল গোয়েন্দা পুলিশে কর্মরত ছিলেন। শারমিন ঢাকার ধামরাই উপজেলার কলিম উদ্দিনের মেয়ে।

টাঙ্গাইলের পুলিশ সুপার সঞ্জিত কুমার রায় বিপিএম শারমিনের আত্মহত্যার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। জেলা গোয়েন্দা পুলিশের (দক্ষিন) ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শ্যামল কুমার দত্ত জানান, শারমিন অফিসে না আসায় গোয়েন্দা পুলিশ অফিস থেকে তাকে ফোন করা হলেও ফোন ধরেননি। পরে পুলিশ ব্যারাকে অন্য এক নারী কনস্টেবলকে ফোন দিয়ে খোঁজ নিতে বলা হয়। তিনি শারমিনের রুমের সামনে গিয়ে দরজা বন্ধ এবং সিলিং ফ্যানের সাথে ওরনা দিয়ে ঝুলন্ত অবস্থায় শারমিনকে দেখতে পায়।

তার লাশ উদ্ধার করার পর একজন নির্বাহী হাকিমের উপস্থিতিতে লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করা হয়। পরে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ময়না তদন্ত সম্পন্ন হয়।

শারমিন আক্তারের স্বামী মাহবুবুর রহমানও পুলিশের কনস্টেবল। তিনি ঢাকা মেট্রোপলিটনে কর্মরত। গত দেড় মাস আগে মাহবুবুর রহমানের সাথে শারমিনের বিয়ে হয়।

Related Articles