সখীপুরে ইয়াবা দিয়ে ফাঁসানোর সময় তিন পুলিশসহ ৪ জনকে গণধোলাই ! থানায় মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক : পকেটে ইয়াবা দিয়ে ফাঁসানোর সময় টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার বাশতৈল পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই, ২ কনস্টেবল ও ১ সোর্সকে আটক করে জনতা গণধোলাই দিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। বৃহস্পতিবার সন্ধায় টাঙ্গাইলের সখীপুর উপজেলার হতৈয়া রাজাবাড়ির গাবিলার বাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এরা হলেনÑ মির্জাপুরের বাশতৈল পুলিশ ফঁড়ির এএসআই রিয়াজুল ইসলাম, কনস্টেবল গোপাল সাহা, রাসেল ও পুলিশের সোর্স হাসান। এ ঘটনায় সখীপুর থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক আমিনুল হক বাদি হয়ে ৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন।
সংশ্লিষ্ট্য সূত্রে জানা যায়, এএসআই রিয়াজের নেতৃত্বে ওই পুলিশ সদস্যরা গাবিলার বাজারে গিয়ে হতেয়া রাজাবাড়ির ভাতকুড়াচালার ফরহাদ মিয়ার ছেলে বজলুকে পকেটে ইয়াবা দিয়ে ফাঁসানোর চেষ্টা করে। এসময় স্থানীয় জনতা বিষয়টি টের পেয়ে পুলিশ সদস্যদের আটক করে রাজাবাড়ি আদর্শ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে নিয়ে যায়। সেখানে তাদের গণধোলই দিয়ে এক কক্ষে আটকে রাখে। খবর পেয়ে এলাকার শত শত জনতা ঘটনাস্থলে ভীর জমায়। খবর পেয়ে সখীপুর এবং মির্জাপুর থানা পুলিশ পরিস্থিতি ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন এবং তাদেরকে উদ্ধার করে রউনা হয়।
সখীপুরের বরচনা কলেজের শিক্ষক আব্দুল লতিফ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন।

এ ব্যাপারে সখীপুর থানার ওসি (তদন্ত) এএইচ এম লুৎফুল কবির বলেন, পুলিশের ওই সদস্যরা মাদক উদ্ধার করতে সেখানে যায়। তখন ভুলবুজাবুজিতে জনগণ তাদেরকে আটক করে। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে উত্তেজিত জনতাকে শাস্ত করে তাদের উদ্ধার করে। এ ব্যাপারে পুলিশ সুপার সঞ্জিত কুমার রায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে তিনি জানান।

মির্জাপুর থানার ওসি সায়েদুর রহমান বলেন, ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।

Related Articles