যুদ্ধপতাকা উড়িয়ে যুদ্ধের ইঙ্গিত দিলো ইরান

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ।।

ইরাকের বাগদাদে মার্কিন হামলায় নিহত হয়েছেন ইরানের প্রভাবশালী জেনারেল কাসেম সোলায়মানি। এরপর থেকে যুক্তরাষ্ট্র ও ইরানের মধ্যে যুদ্ধাবস্থা বিরাজ করছে। এমতাবস্থায় সোলায়মানি হত্যার প্রতিশোধের বার্তা দিয়ে মসজিদের চূড়ায় যুদ্ধের ইঙ্গিত করে এমন লাল পতাকা উড়িয়েছে ইরান।

শনিবার ইরানের কম প্রদেশের পবিত্র মসজিদ জামকারানের সর্ব্বোচ্চ গম্বুজে রক্তলাল পতাকা ওড়ায় ইরান।

আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমে জানানো হয়েছে, ইতিহাসে এই প্রথমবারের মতো ইরান জামকারান মসজিদে রক্তলাল পতাকা ওড়ালো। এই পতাকা ওড়ানোকে সোলেমানি হত্যার দায়ে যুক্তরাষ্ট্রের ওপর ইরানের বদলা নেওয়ার অঙ্গীকার হিসেবে দেখা হচ্ছে।

পতাকাটিতে লেখা রয়েছে, ‘যারা হোসেনের রক্তের বদলা নিতে চায়’। শিয়া সংস্কৃতিতে লাল পতাকা অন্যায় রক্তপাতের বদলা নেওয়ার প্রতীক।

এর আগে শুক্রবার সোলায়মানিকে হত্যায় ক্ষুব্ধ হয়ে হাজার হাজার শোকার্ত মানুষ বাগদাদের রাস্তায় নেমে আসে ও ‘আমেরিকা নিপাত যাক’ বলে স্লোগান দিতে থাকে।

এছাড়া শনিবার রাতে বাগদাদের মার্কিন দূতাবাস ও বিমান ঘাঁটির কাছে কয়েক দফা রকেট হামলা চালানো হয়েছে। তবে কারা এই হামলা চালিয়েছে সে বিষয়ে কিছু জানা যায়নি।

বৃহস্পতিবার রাতে বাগদাদ বিমানবন্দরে মার্কিন রকেট হামলায় নিহত হন ইরানের শীর্ষ জেনারেল কাসেম সুলায়মানি। তার সঙ্গে নিহত হন ইরাকের মিলিশিয়া গ্রুপের এক কমান্ডারও। এই ঘটনার পরই সুলায়মানি হত্যার প্রতিশোধ নেয়া হবে বলে কড়া বার্তা দিয়েছেন ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লা খামেনী।

সোলায়মানিকে হত্যার কথা স্বীকার করে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, যুদ্ধ বন্ধ করতেই সোলায়মানিকে হত্যা করা হয়েছে।

দুই দেশের হুমকি পাল্টা হুমকিতে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে গোটা বিশ্ব। দুই দেশের মধ্যে যুদ্ধের আশঙ্কা জোরালভাবে দেখা দিয়েছে।

(এম কন্ঠ/আর.কে/ ০৫ জানুয়ারি )

সংবাদটি শেয়ার করুন

Related Articles