শিক্ষায় অসঙ্গতি: পর্ব-০১

।।রেজাউল করিম।।

শিক্ষা জাতির মেরুদন্ড। আমদের জাতির মেরুদন্ড কতোটা শক্তিশালী তা নিয়ে প্রায়ই প্রশ্ন উঠে । শিক্ষা ব্যবস্থা নিয়ে সিদ্ধান্তহীনতায় রয়েছে সংশ্লিষ্ঠ কর্তৃপক্ষ। প্রায়ই শুনি পরিক্ষা শিশুদের জন্য চাপ। কথাটা মন্দ না। তাই বলে পরিক্ষা না থাকলে কিন্তু শিক্ষা কোন মূল্যয়ন থাকবে না। মাঝে মাঝে সরকারের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে সমাপনী উঠে যাবে।২০১৬ সালে ২১ জুন তৎকালীন প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান বলেছিলেন, এ বছর থেকেই পঞ্চম শ্রেণি শেষে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা আর থাকবে না। একেবারে অষ্টম শ্রেণি শেষে হবে এ পরিক্ষা। তবে অষ্টম শ্রেণি শেষে অনুষ্ঠেয় সমাপনী পরিক্ষার নাম প্রাথমিক স্কুল সার্টিফিকেট (পিএসসি) হবে কি না, তা ঠিক করবে মন্ত্রিসভা। কিছুদিন পর প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী প্রাথমিক শিক্ষা রয়ে গেছে।

 

পঞ্চম শ্রেণির প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি সমাপনী পরিক্ষা থাকবে- এমন চিন্তা মাথায় রেখেই গঠন করা হচ্ছে প্রাথমিক শিক্ষা বোর্ড। শোনা যাচ্ছে, এ সমপানী পরীক্ষার ৩০ লাখেরও বেশি শিক্ষার্থীর চাপ সামলাতে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের এক প্রস্তাব অনুসারে ইতোমধ্যেই শুরু হয়েছে বোর্ড গঠন প্রক্রিয়া।

 

প্রায়ই বলা হচ্ছে, অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত পরিক্ষা উঠে যাচ্ছে। সর্বশেষে শোনা গেল আপাতত তৃতীয় শ্রেণি পর্যন্ত পরিক্ষা থাকছেনা। গ্রেড পয়েন্ট নিয়ে প্রায়ই কথা উঠছে। গ্রেডের পরিবর্তন হচ্ছে অথবা গ্রেড থাকবেনা। এতো সিদ্ধান্তহীনতা থাকলে শিক্ষা বাধাগ্রস্থ হবে । গত কয়েক বছরে পাঠ্য বইয়ের তালিকাও পরিবর্তন হয়েছে। কখনও ক্যারিয়ার শিক্ষাকে প্রাধান্য দেওয়া হচ্ছে। আবার কখনও তথ্য প্রযুক্তিকে।কখন্য নৈর্ব্যত্ত্বিককে আবার কখনও সৃজনশীলকে। সরকার বলছে বছরে দুই সাময়িক পরিক্ষা হবে। মাধ্যিমিক শাখা মানলেও প্রাথমিক বিভাগে সরকারি স্কুলগুলো বছরে তিন সাময়িকে পরিক্ষা নিচ্ছে। মানছে না সরকারের কথা। বেসরকারি স্কুলগুলো নিচ্ছে চার সাময়িক পরিক্ষা। যদিও সাধরণ দৃষ্টিতে পরিক্ষা ক্ষতিকারক হতে পারেনা। তবে পরিক্ষা বা পাঠদান পদ্ধতি এক ধরনের হওয়াটাই ভালো।

 

শিক্ষাক্ষাতে ব্যবস্থাপনায় কিছু অসঙ্গতি রয়েছে। আবার কিছু অসঙ্গতি সৃষ্টি করে থাকি আমরা অভিভাবকরা। আমাদের জাতিকে শক্তিশালী করতে বা আরেকটু সোজা হয়ে দাঁড়াতে এই অসঙ্গতিগুলো সমাধান করা জরুরী। ‘শিক্ষায় অসঙ্গতি’ শিরোনামে শিক্ষার অসঙ্গতিগুলো তুলে ধরার চেষ্টা করবো। আজ প্রথম পর্বের মাধ্যমে লেখা শুরু হলো। পরবর্তীতে প্রতিটি পর্বতে বিষয় ভিত্তিক অসঙ্গতি নিয়ে আলোচনা করবো। আশা করি প্রতিটি পর্ব পড়ে আমাদের সাথে থাকবেন। সুন্দর পরামর্শ দিয়ে লেখার প্রেরণা জোগাবেন। আপনি ও আপনার সন্তানের জন্য শুভ কামনা। নিজে সুরক্ষিত থাকুন। আপনার সন্তানকে সুরক্ষিত রাখুন।

 

লেখক : একজন শিক্ষক ও সংবাদকর্মী

পরিচালক-ইমপ্রুভ শিক্ষা পরিবার।

e-mail: [email protected]

 

 

Related Articles