শেষ সময়ে ব্যাপক প্রচারণায় মিনা

নিজস্ব প্রতিবেদক :

তিনদিন পর টাঙ্গাইল পৌরসভার ১৮ নং ওয়ার্ডের উপ-নির্বাচনের ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে প্রার্থীরা শেষ সময়ের প্রচারণা চালাচ্ছেন। তারই ধারাবাহিকতায় সদ্য প্রয়াত কাউন্সিলর ওবায়দুল করিম বাবলু’র স্ত্রী মাহবুবা করিম মিনা (গাজর) প্রতীক নিয়ে ব্যাপক প্রচারণা চালাচ্ছেন। নির্বাচনে জয় পেতে প্রতিদিন সকাল থেকে রাত পর্যন্ত ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ছুটছেন তিনি। ভোটারদের মন জয়ের জন্য দিচ্ছেন নানা প্রতিশ্রুতি। এছাড়াও পথ সভা, মতবিনিময় সভা, আলোচনা সভাসহ ভোটারদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোট প্রার্থনা করছেন।

মাহবুবা করিম মিনা বলেন, নির্বাচনে আমার ব্যাপক জনপ্রিয়তা ও সমর্থন রয়েছে। অনেক প্রার্থী ঈর্ষানিত হয়ে আমার সমর্থক ও কর্মীদের ভয়ভীতি এবং কালো টাকার বিনিময়ে তাদের সাথে নেয়ার চেষ্টা করছেন। অবাধ সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের বাধা প্রয়োগের জন্য ইতি মধ্যে ওয়ার্ডে অনেক অপরিচিত মানুষ ও চিহ্নিত সন্ত্রাসী প্রবেশ করেছে। তাই আমি প্রশাসনের সুদৃষ্টি ও হস্তক্ষেপ কামনা করছি। অবাধ সুষ্ঠ নির্বাচন হলে ওয়ার্ডের জনগণ আমাকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করবেন। আল্লাহর অশেষ রহমতে আমি নির্বাচিত হলে এলাকার সার্বিক উন্নয়ন করবো।

মিনা আরও বলেন, আমার স্বামী মানুষের সুখ, দুঃখে পাশে থাকতো। মানুষকে বিপদ থেকে উদ্ধার করতো। আমিও মানুষের সুখ দুঃখে পাশে থাকছি। আমার স্বামী এলাকার সার্বিক উন্নয়নের কাজ করতেছিলেন। তার মৃত্যুতে শোকাহত ওয়ার্ডবাসী। তার অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করার জন্য মানুষের ধারে ধারে ঘুরে ভোট প্রার্থনা করছি।

জানা যায়, টাঙ্গাইল পৌরসভার ১৮ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ওবায়দুল করিম বাবলু গত ১৭ অক্টোবর হৃদ রোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন। তার মৃত্যুর দু-এক দিন পর থেকেই এই ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে প্রার্থী হতে কয়েক তৎপরতা শুরু করেন। সম্প্রতি স্থানীয় সরকার বিভাগ ১৮ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর পদটি শূণা ঘোষণা করেছে।
জেলা নির্বাচন অফিস থেকে জানা যায়, শূণ্য ঘোষণার পর স্থানীয় সর

কার বিভাগ থেকে নির্বাচন কমিশনে চিঠি দিয়ে এই ওয়ার্ডে উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠানের ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে। এ খবরের অন্তত ৯ জন প্রার্থী পুরোদমে মাঠে নামে।

গত ১৯ ডিসেম্বর ৯ জন প্রার্থী তাদের মনোনয়ন পত্র ক্রয় করেন। এর পর ২১ ডিসেম্বর প্রার্থীদের মনোনয়ন যাচাই বাচাই করা হয়। ২৯ ডিসেম্বর প্রার্থীদের প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়।

অন্যান্য প্রার্থীরা হচ্ছেন, সাবেক কাউন্সিলর সাখাওয়াত হোসেন আলম (ডালিম), তোফাজ্জল হোসেন১ (পাঞ্জাবি), হাবিবুর রহমান টুটুল (উট পাখি), আসাদুজ্জামান প্রিন্স (ব্রিজ), শরীফ ফকির (পানির বোতল), হারুন অর রশীদ (ব্লাক বোর্ড), রুহুল কুদ্দুস মুকুল (ঢ্যাঁরশ), তোফাজ্জল হোসেন ২ (টেবিল ল্যাম্প) প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন।

(এম কন্ঠ/আর.কে/ ১০ জানুয়ারি )

সংবাদটি শেয়ার করুন

Related Articles