‘মহানবীকে শেষ নবী না মানলে মুসলিম নয়’

‘মহানবীকে শেষ নবী না মানলে মুসলিম নয়’

ইসলামিক ডেস্ক :

চট্টগ্রামের হাটহাজারীর শতবর্ষী দীনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আল জামিয়াতুল হামিদিয়া নাছেরুল উলুম ফতেহপুর মাদ্রাসার বার্ষিক মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। মাহফিলে বক্তারা কাদিয়ানি সম্প্রদায়কে অমুসলিম ঘোষণার দাবি জানিয়েছেন। মহানবী সা.কে শেষ নবী না মানলে মুসলিম থাকার কোনো সুযোগ নেই বলে জানিয়েছেন তারা।

শনিবার মাদ্রাসাটির ১০৪তম বার্ষিক মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল ও ঐতিহ্যবাহী আল আমিন সংস্থার সভাপতি শাইখুল হাদিস মাওলানা মাহমুদুল হাসান।

মাহফিলে বক্তারা বলেন, ‘এ দেশ মুসলমানদের দেশ। এ দেশের সংখ্যাগরিষ্ঠ মানুষ এক আল্লাহয় বিশ্বাসী, এক নবীতে বিশ্বাসী। আল্লাহ্ ছাড়া যেমন আমার কোনো রব নেই, তেমনি নবী মোহাম্মদ সা.-এর পরে আর কোনো নবী নেই। এটাই মুসলমানদের অকাট্য ধর্মীয় বিশ্বাস। এই বিশ্বাসে আঘাতকারী কাদিয়ানি সম্প্রদায়কে বাংলার বুকে অমুসলিম ঘোষণা করতে হবে।’

আলোচকরা আরও বলেন, ‘সারা বিশ্বের আলেম উলামাদের সম্মিলিত ও ঐক্যমতে ভিত্তিতে কাদিয়ানিরা কাফের। যারা নবী মোহাম্মদ সা.কে শেষ নবী মনে করে না তারা সব ইমামের ঐক্যমতের ভিত্তিতে, সব মাজহাবের ঐক্যমতের ভিত্তিতে কাফের। যেহেতু কাদিয়ানিরা কাফের তাই মুসলিম নাম ধারণ করে ধর্মীয় পরিচয় গোপন রেখে এ দেশে বসবাস করতে পারে না। তাই এদেরকে অনতিবিলম্বে রাষ্ট্রীয়ভাবে অমুসলিম ঘোষণা করতে হবে।

মাহফিলে আলোচনায় অংশ নেন প্রখ্যাত মুফাসসিরে কোরআন মাওলানা জুনায়েদ আল হাবিব, হাটহাজারী মাদ্রাসার শিক্ষক মুফতি কেফায়েতুল্লাহ, খ্যাতিমান মিডিয়া ব্যক্তিত্ব মাওলানা গাজী সানাউল্লাহ রাহমানী, রামপুরা কারিমিয়া মাদরাসার মুফতি ওলিউল্লাহ প্রমুখ।

(মজলুমের কণ্ঠ/৪ ফেব্রুয়ারি/আর.কে)

সংবাদটি শেয়ার করুন

Related Articles