সেই গ্রহাণুর বিপদ থেকে বেঁচে গেলো পৃথিবী

সেই গ্রহাণুর বিপদ থেকে বেঁচে গেলো পৃথিবী

 

অনলাইন ডেস্ক:

অনেকদিন ধরেই আলোচনায় ছিল পৃথিবীর দিকে ধেয়ে আসছে নতুন একটি গ্রহাণু। পৃথিবী ধ্বংসও হতে পারে সেই গ্রহাণুর ধাক্কায়। সেই গ্রহাণুটি পৃথিবীকে ধাক্কা না দিয়ে পৃথিবীর পাশ কেটে বেরিয়ে গেছে। প্রায় ২ কিলোমিটার চওড়া ছিল সেই গ্রহাণু। বুধবার ভোরে এটি পৃথিবীকে পাশ কাটিয়ে যায়। খবর নাসা ও স্পেস ডট কমের। আপাতত সেই গ্রহাণুর বিপদ থেকে বেঁচে গেলো পৃথিবী।

পৃথিবী থেকে প্রায় ৩.৯ মিলিয়ন মাইল দূর দিয়ে ছুটে গেছে গ্রহাণুটি। সৌর জগতের হিসাবে এই দূরত্ব তেমন কিছু নয়। তবে পাশ দিয়ে গ্রহাণুর ছুটে যাওয়ার ঘটনায় কোনো প্রভাব পড়েনি পৃথিবীর ওপর।

ঘটনার সময় মহাকাশের দিকে চোখ রেখেছিলেন নাসার বিজ্ঞানীরা। নাসার বিজ্ঞানীরা জানান, যদি এটি পৃথিবীর সঙ্গে কোনোভাবে ধাক্কা খেত তাহলে ভইয়ংকর বিপদ হতো পৃথিবীর।

সম্প্রতি এই গ্রহাণুর ছবি তুলেছেন মহাকাশবিদরা। একটি অবজারভেটরি থেকে সেই ইমেজ প্রকাশ্যে আনা হয়েছে। দেখা গিয়েছে, প্রায় ২ কিলোমিটার চওড়া এই গ্রহাণু সাইজে মাউন্ট এভারেস্টের অর্ধেক।

অনেক গবেষক জানান, আগামী ২০৭৯ সাল অবধি এই গ্রহাণু থেকে নিশ্চিন্ত হতে পারে বিশ্ববাসী। কারণ ২০৭৯ সালের আগে এটি পৃথিবীর কাছে আর ফিরবে না বলে মনে করা হচ্ছে।

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাসের মহামারি চলছে। এই ভাইরাস থেকে বাঁচতে মানুষের মাস্ক পরা এখন প্রায় বাধ্যতামূলক। সারা পৃথিবীর মানুষ এখন মাস্ক পরার অভ্যাস করে ফেলেছেন। এমন আবহে এই গ্রহাণু ঘিরে ব্যাপক উত্তেজনা চড়েছিল। কারণ, গ্রহাণুটি নাকি পৃথিবীর দিকে ছুটে আসছে মুখে মাস্ক পরে, এমন গুজব-গুঞ্জন ডালপালা মেলেছিল।

মহাকাশবিদরা জানান, এই গ্রহাণুর ভৌগোলিক বৈশিষ্ট্য এমন যে, দেখে মনে হচ্ছে এটিকে ফেস মাস্ক পরানো হয়েছে। আসলে গ্রহাণুটি পর্বতের মতো উঁচু-নিচু। সেই জন্যই এর এমন চেহারা তৈরি হয়েছে।

 

মজলুমের কণ্ঠ / ২৯এপ্রিল /আর.কে)

সংবাদটি শেয়ার করুন

Related Articles