শিক্ষানবিশ আইনজীবির খোলা চিঠি

শিক্ষানবিশ আইনজীবির খোলা চিঠি

।। সাইফুল ইসলাম ।।

 

শিক্ষানবিশ আইনজীবিদের সফল ইন্টিমেশন পিরিয়ড শেষে বার কাউন্সিল এ তালিকাভূক্তি করলে দেশে বেকারত্বের হার কমবে বারকাউন্সিলে এমসিকিউ, লিখিত ও ভাইবা পরীক্ষাপদ্ধতির কারণে: দীর্ঘসূত্রিতা তৈরি হয়েছে কর্তা ব্যক্তিদের দুর্নীতি করার সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে এবং বেকারত্ব বেড়ে যাচ্ছে।  অথচ যদি পূর্বের মত নিজ নিজ বার এসোসিয়েশন থেকে সফল ইন্টিমেশন সমাপ্তকারি শিক্ষানবিশদের বাংলাদেশ বার কাউন্সিল মৌখিক পরীক্ষার মাধ্যমে বার কাউন্সিলের তালিকাভূক্তি সনদ প্রদান করতেন বর্তমান বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে এবং বেকারত্বের হার কমানোর লক্ষ্যে বাংলাদেশে(প্রায়) ৭০ হাজার শিক্ষানবিশ আইনজীবী আইন পেশায় আসার জন্য অপেক্ষা করছেন এবং ৭০(সত্তুর) হাজার পরিবার মানবেতর জীবনযাপন করছে।

 

যদি পূর্বের মত সফল ইন্টিমেশন সমাপ্তকারিদের মৌখিক পরীক্ষার মাধ্যমে বার কাউন্সিলের তালিকাভূক্তি করা হয় তাহলে বাংলাদেশের প্রায় ৭০(সত্তুর) হাজার বেকার কমবে সত্তুর হাজার পরিবার বাচবে এতে সরকারের কোনো রাজস্বের ক্ষতি হবে না। বর্তমানে সিনিয়র প্রায় সকল বিজ্ঞ আইনজীবীণ নিজ নিজ বার এসোসিয়েশন থেকে সফলভাবে ইন্টিমিশন শেষে বার কাউন্সিলে শুধু মৌখিক পরীক্ষার মাধ্যমে তালিকাভূক্তি হয়েছে।

সকল শিক্ষানবীশ ও মানবতাবাদীদের একটাই দাবী সফল ইন্টিমেশন শেষে বার কাউন্সিলে তালিকাভুক্তি চাই। ৭০(সত্তুর) হাজার মানবেতর জীবন জাপনকারী শিক্ষানবিশ আইনজীবী দের পক্ষে মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম শিক্ষানবীশ আইনজীবী ও মানবাধিকার কর্মী।

(মজলুমের কণ্ঠ / ০৮ জুলাই /আর.কে)

সংবাদটি শেয়ার করুন

Related Articles