ওজন কমাতে পানি

ডেস্ক রিপোর্ট:

পানি পান শুধু বাড়তি ক্যালরিই ক্ষয় করে না এটি শরীর বিশুদ্ধ করতেও সাহায্য করে। এছাড়া প্রতিদিন পর্যাপ্ত পানি পান করলে দেহের অঙ্গপ্রত্যঙ্গকে সঠিকভাবে কাজ করতে সহায়তা করে। বাড়তি শক্তি জুগিয়ে ক্যালরি পোড়াতেও সহায়তা করে।

* শরীর থেকে বিষাক্ত পদার্থ বের করতে সহায়ক:
শরীরে আর্দ্রতার ঘাটতি হলে ভেতর থেকে সহজে বিষাক্ত উপাদান দূর করতে পারে না। পানি কিডনি থেকে বিষাক্ত পদার্থ দূর করতে সহায়তা করে। পানির ঘাটতি হলে কিডনি ঠিকমতো এই কাজটি করতে পারে না।

* বেশি খাওয়া থেকে বিরত রাখে:
গবেষণায় দেখা গেছে, দুপুরে এবং রাতের খাবার খাওয়ার আধা ঘণ্টা আগে এক গ্লাস পানি খেলে বেশি খাবার খাওয়া কমিয়ে দেয়। খাওয়ার আগে পানি খেলে ১৩ শতাংশ ক্যালরি কমিয়ে দেয়।

* শরীরে কার‌্যক্ষমতার উন্নতি ঘটায়:
সুস্থ জীবনযাপনের জন্য শারীরিক কার্যক্ষমতা গুরুত্বপূর্ণ। প্রতিদিন পর্যাপ্ত পানি পান করলে শরীরে কার্যক্ষমতা বাড়িয়ে দেয়। এটি পেশি, কোষের সংযুক্তি এবং জয়েন্ট সঠিকভাবে কাজ করতে সহায়তা করে। এটি হার্ট এবং ফুসফুসের কার্যক্রম ঠিক রাখতে সহায়তা করে।

* ক্যালরিবিহীন পানীয়:
স্বাস্থ্যসম্মত জীবনযাপনের জন্য বিভিন্ন প্রকার কোমল পানীয়ের পরিবর্তে সাধারণ পানি পান করতে পারেন। কারণ এতে ক্যালরি শূন্য এবং রাখে আর্দ্র। নিয়মিত পর্যাপ্ত পানি পানে স্থূলতা এবং ওজন বৃদ্ধির ঝুঁকি কমায়।

* দৈনিক কতটুকু পানি পান করা জরুরি:
দৈনিক ৮ গ্লাস বা দুই লিটার পানি পানই যথেষ্ট অনেকেই বলে থাকেন। বিষয়টা তা নয়; ব্যক্তিভেদে পানি পানের চাহিদা পুরোটাই ভিন্ন হয়। যেমন যারা প্রচুর ঘামেন তাদের ক্ষেত্রে ৮ গ্লাসের বেশি পানি প্রয়োজন। যারা সারাদিন এসি রুমে থাকেন এবং শারীরিক পরিশ্রম কম করেন তাদের জন্য ৮ গ্লাস পানিই যথেষ্ট।

আবার বিভিন্ন খাবার চা, কফি, দুধ, ফল, শাকসবজি থেকেও আমাদের পানির চাহিদা মেটানো সম্ভব। এ কারণে যখনই তৃষ্ণা অনুভব করবেন তখনই অবশ্যই পানি পান করবেন।

 

 

(মজলুমের কণ্ঠ / ০৩ জানুয়ারি / আর.কে.)

সংবাদটি শেয়ার করুন

Related Articles