কালিহাতীতে সরকারি নিয়মের তোয়াক্কা না করে ফসলি জমির মাটি যাচ্ছে ইটভাটায়

নিজস্ব প্রতিবেদক :

টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার নাগবাড়ী ইউনিয়নের পাকুটিয়া ফসলি জমির উপরিভাগের মাটি বিক্রির হিড়িক পড়েছে। কৃষকদের অভাবে সুযোগ নিচ্ছে দালাল চক্র এবং বিক্রীত মাটি যাচ্ছে ইটভাটায়।

তাই অবৈধভাবে আবাদি জমির মাটি বিক্রির মহোৎসব চলছে নাগবাড়ী ইউনিয়নে। উপজেলার নাগবাড়ী ইউনিয়নের পাকুটিয়া গ্রামের মৃত রাজা মিয়ার ছেলে নুরেআলম ও একই গ্রামের খালেক নিজের ইচ্ছামতো কোনো ধরনের নিয়মনীতি না মেনে ফসলি জমির মাটি বিক্রির ব্যস্ত হয়ে পড়েছে।

ফলে কমে যাচ্ছে ফসলি জমি, পাশাপাশি মাটি কাটার ভেকু দিয়ে মাটি বিক্রিতে পার্শ্ববর্তী জমিগুলো হারিয়ে ফেলছে উর্বরতা ও সৃষ্টি হচ্ছে বিভিন্ন ফসল আবাদে প্রতিবন্ধকতা। উপজেলা নাগবাড়ী ইউনিয়নসহ বিভিন্ন ইউনিয়নে ও নদীর পাড় এলাকায় দেখা যায় এমন চিত্র।

সরেজমিন দেখা যায়, নাগবাড়ী ইউনিয়নের পাকুটিয়া জমির উপরিভাগের মাটি বিক্রির কারণে আবাদি জমি সঙ্কুচিত হয়ে পড়ছে এবং শস্য উৎপাদন ক্ষমতা হ্রাস পাচ্ছে এসব জমিতে।

একাধিক কৃষক জানান, এভাবে মাটি বিক্রি অবৈধ কিন্তু কার কাছে নালিশ দেবো, কে শুনবে আমাদের কথা যারা মাটি কিনে নিয়ে যাচ্ছে তারা ক্ষমতাসীন দলের লোক। নিরুপায় হয়ে কৃষকরা মাটি বিক্রি করে দিচ্ছে।

এ বিষয়ে কালিহাতী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুমানা তানজিন অন্তরা জানান, যত দ্রুত সম্ভব ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ বিষয়ে উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি কামরুল হাসান বলেন, ওই এলাকা থেকে কয়েকজন এই বিষয়টি জানালে নাগবাড়ী ইউনিয়নের ভূমি কর্মকর্তাকে পাঠানো হয়েছিল।

এ বিষয়ে নাগবাড়ী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাকসুদুর রহমান মিল্টন সিদ্দিকী বলেন, ফসলি জমির মাটি কাটা
বন্ধ করার জন্য গ্রাম পুলিশ পাঠানো হয়েছিল।

Related Articles