মির্জাপুরে বিএনপির সাবেক সভাপতি এবার আ.লীগের সভাপতি

মির্জাপুর প্রতিনিধি:

টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার ফতেপুর ইউনিয়ন বিএনপির সাবেক সহসভাপতি ও সাবেক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রউফ মিয়া ফতেপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন। গতকাল বুধবার ফতেপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্মেলনে ১০৯ ভোট পেয়ে তিনি সভাপতি নির্বাচিত হন। ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি পদে রউফ নির্বাচিত হওয়ায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এ নিয়ে সমালোচনার ঝড় উঠেছে।


২০১৬ সালে বিএনপির জালাও-পোড়াও আন্দোলনে অংশ নেয়ায় মির্জাপুর থানা পুলিশ মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় আব্দুর রউফ মিয়া একজন আসামী। মামলাটি বর্তমানে চলমান রয়েছে বলে জানা গেছে। তিনি ২০১৭ সালের ১৬ এপ্রিল বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে ফতেপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে জয়ী হন।

জানা গেছে, আব্দুর রউফ মিয়া ফতেপুর ইউনিয়ন বিএনপির সহসভাপতি পদে দীর্ঘদিন দায়িত্ব পালন করেছেন। পরবর্তীতে তিনি ওই ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত সভাপতির দায়িত্বও পালন করেন। দায়িত্ব পালনের সময় সরকার বিরোধী বিএনপির জালাও-পেড়াও আন্দোলনে তিনি সক্রিয় অংশ গ্রহণ করেন। এ বিষয়ে মির্জাপুর থানা পুলিশ একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা নম্বর ৬। তারিখ ৫ ডিসেম্বর ২০১৬। ওই মামলায় আব্দুর রউফ একজন আসামী। মামলাটি বর্তমানে টাঙ্গাইল আদালতে চলমান রয়েছে বলে জানা গেছে। ২০১৭ সালের ১৬ এপ্রিল ফতেপুর ইউপি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ওই নির্বাচনে রউফ বিএনপির দলীয় মনোনয়ন চান। মনোনয়ন না পেয়ে ধানের শীষ ও নৌকা প্রতীকের বিরুদ্ধে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। একই বছর ২০ আগস্ট ফতেপুর উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে ফতেপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদত বার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভার আয়োজন করে। ওই সভায় ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রউফ ৬ ইউপি সদস্যসহ বিএনপির শতাধিক নেতাকর্মী নিয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি মো. একাব্বর হোসেনের হাতে ফুলের নৌকা তুলে দিয়ে আওয়ামী লীগে যোগদান করেন।

এদিকে ৩১ মার্চ বুধবার ফতেপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্মেলনের তারিখ ঘোষণা করে উপজেলা আওয়ামী লীগ। সম্মেলনে চেয়ারম্যান আব্দুর রউফ মিয়া নিজেকে সভাপতি পদে প্রার্থীতা ঘোষণা দিয়ে প্রচারণা চালায়। ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদ্য বিদায়ী সভাপতি মো. নজরুল মিয়া ও সাধারণ সম্পাদক মো. আলী আজম খান উপজেলা, জেলা ও কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ বরাবর রউফের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগ এনে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগ দেয়ার পর রউফের সদস্য পদ বাতিল বা স্থগিত না হওয়ায় ৩১ মার্চ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্মেলনে তিনি সভাপতি পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। সভাপতি পদে ১০৯ ভোট পেয়ে রউফ নির্বাচিত হওয়ায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এ নিয়ে সমালোচনার ঝড় উঠেছে।

উপজেলা বিএনপির সভাপতি সাবেক সাংসদ আবুল কালাম আজাদ সিদ্দিকী আব্দুর রউফ মিয়া ইউনিয়ন বিএনপির সহসভাপতি ও ভারপ্রাপ্ত সভাপতির দায়িত্বে থাকার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেছেন, তিনি ফতেপুর ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে বিএনপির দলীয় মনোনয়ন চেয়েছিলেন। মনোনয়ন না পেয়ে বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করেছিলেন। এখন পর্যন্ত তিনি বিএনপি থেকে পদত্যাগ করেননি বলে জানান।

মির্জাপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ফতেপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি মো. বাহার উদ্দিন মাস্টার ও ফতেপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. নজরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক মো. আলী আজম উপজেলা, জেলা ও কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ বরাবর আব্দুর রউফকে কাউন্সিলর না বানানোর অনুরোধ জানিয়ে পত্র পাঠান।

সম্মেলনে সভাপতি পদে প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী মো. বাহার উদ্দিন মাস্টার বলেন, আমরা উপজেলা, জেলা ও কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ বরাবর রউফ চেয়ারম্যানকে কাউন্সিলর না করার জন্য একটি পত্র জমা দিয়েছিলাম। তাতে কোন রকম প্রতিকার পায়নি। উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. একাব্বর হোসেন এমপি আমাদের ডেকে বলেছেন, রউফ মিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য। সে হিসেবে তিনি প্রার্থী হতে পারবেন বলে মৌখিকভাবে নির্দেশ দিয়েছেন।

নবনির্বাচিত ফতেপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রউফ মিয়ার সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, এক সময় বিএনপি করতাম। ২০১৭ সালে আওয়ামী লীগে যোগদান করেছি। ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ আমাকে সদস্য পদ দিয়েছে। এজন্য আমি সভাপতি পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছি এবং কাউন্সিলররা ভোট দিয়ে জয়ী করেছেন। কাউন্সিলরদের প্রতি আমি কৃতজ্ঞ।

মির্জাপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মীর শরীফ মাহমুদ বলেন, ৫ বছর আগে রউফ মিয়াকে ফতেপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য বানানো হয়েছে। সম্মেলনের দ্বিতীয় অধিবেশনেও প্রার্থীরা তাকে মেনে নিয়ে ভোটে অংশ নিয়েছে। এখন অভিযোগ করে লাভ কি?

(মজলুমের কণ্ঠ / ১ এপ্রিল / আর.কে)

সংবাদটি শেয়ার করুন

Related Articles