পুরুষদের থেকে দেশের নারীরা এগিয়ে পরকীয়ায়

ফিচার ডেস্ক:

এখন” পরকিয়া “শব্দটি ঠিক ভাত ডাল এর মতোই সাধারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। বেশিরভাগ উপন্যাস, সে বাংলা কবি রবীন্দ্রনাথ এর হোক বা ইংরেজি Fitzgerald এর, পরকিয়া সব জায়গাতেই বিশেষ ভাবে লক্ষণীয়। বাংলা তথা সমগ্র দেশ এর সিনেমা গুলো থেকেও পাওয়া যায় পরকিয়ার গন্ধ ।
পরকিয়া টা আসলে কি? কেন ঘটে এই পরকিয়া ? এটা কি মানুষের স্বভাব নাকি অভাব এর তাড়নায় করে ফেলে মানুষ ? এসব নিয়েই সম্প্রতি এ সংক্রান্ত এক সমীক্ষা করেছে ফ্রান্সের এক্সট্রা-ম্যারিটাল ডেটিং অ্যাপ Gleeden। জানানো হয়েছে যে ভারতে বিবাহিত মহিলারা পরকীয়ায় লিপ্ত হচ্ছেন। ভালোবাসা, যৌনতা, বন্ধুত্ব এবং সমর্থনের আশায় দেশে বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কের সংখ্যা বাড়ছে ।

জানানো হয়েছে যে পুরুষদের পরকিয়ায় জরিয়ে পরার সংখ্যা মহিলাদের থেকে কম। নিজেদের জন্য জীবনে সুখী না হওয়ার কারণে ৬৪% মহিলা পরকিয়ায় লিপ্ত হন, বিবাহিত এবং শিক্ষিত মহিলাদের মধ্যে ৭৬% বন্ধুত্ব ও সমর্থন পাওয়ার আশায়। শিক্ষিত ও আর্থিক ভাবে সমর্থ মহিলাদের ৭২% নতুন কিছু করা বা পাওয়ার আশায় পর পুরুষ এর প্রতি আসক্ত হয়ে পরেন।

শুধু মহিলারা নন , পুরুষেরা ও পরকিয়ায় লিপ্ত হন নানা কারণে । সংসারে অশান্তি , মানসিক চাপ সমস্ত কিছু থেকে মুক্তি পেতে নতুন ভাবে সুখ পাওয়ার আশায় পুরুষেরা বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্ক করে থাকেন। ২০২০ সালের এই সমীক্ষা অনুযায়ী ভারতে ৫৫ শতাংশ মহিলা এবং পুরুষ নিজেদের বিবাহ-বহির্ভূত সম্পর্কের কথা স্বীকার করেছেন। তার মধ্যে ৫৬ শতাংশই মহিলা বলে জানানো হয়েছে। সমীক্ষার জন্য খুঁজে বের করা ২৫ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে থাকা ১৫২৫ জন পুরুষ এবং মহিলার ৪৮ শতাংশ একাধিক সম্পর্কে ভালো ভাবে বাঁচবার স্বপ্ন দেখেন বলে জানা গিয়েছে।

পরকিয়া ভালো না মন্দ , উচিত না অনুচিত এসব বহু আলোচ্য বিষয় ; তবে এটি যে মানুষের জীবনের অঙ্গ তা অনস্বীকার্য । একদিকে এটি যেমন ক্ষনিক সুখ প্রদান করে তেমনই অনেক কিছু নিঃশেষ করে দেয় এবং সে সব কিছু নিয়েই তৈরি হয় গল্প, নোবেল, সিনেমা ।

(মজলুমের কণ্ঠ / ২৭ আগস্ট/ আর.কে)

সংবাদটি শেয়ার করুন

Related Articles