মির্জাপুরে পরকীয়ায় লিপ্ত থাকায় মা কে কুপিয়ে হত্যা করেছে ছেলে

মির্জাপুর প্রতিনিধি : মায়ের পরকীয়ায় ক্ষিপ্ত হয়েই ছেলে মাকে হত্যা করেছে বলে আদালতে স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্দি দিয়েছে মায়ের হত্যাকারী ছেলে কাওসার মীর। রোববার বিকেলে টাঙ্গাইলের জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মাহাবুবা নওরিনের নিকট এই জবানবন্দি দিয়েছে বলে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই মোতালেব জানিয়েছেণ।

শনিবার বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে মির্জাপুর উপজেলার বানাইল ইউনিয়নের পাইক পাড়া গ্রামের ফজলু মীরের স্ত্রী রিনা বেগম (৪৫) ঘরে শুয়ে ছিলেন। এ সময় তাঁর বড় ছেলে কাউছার মীর (২০) হঠাৎ ঘরে ঢুকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে রিনাকে কুপিয়ে হত্যা করে। খবর পেয়ে পুলিশ তাঁর লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। রিনা দুই সন্তানের জননী বলে জানা গেছে। তাঁর স্বামী পেশায় কৃষক। কাওসারের পিতা ফজলু মীর বাদী হয়ে মির্জাপুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করে।

এদিকে রিনা বেগম হত্যাকান্ডের ঘটনার ১২ ঘন্টার মধ্যে থানা পুলিশ আধুনিক তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহার করে পার্শ্ববর্তী কালিয়াকৈর উপজেলার রতনপুর এলাকা থেকে কাওছার মীরকে গ্রেফতার করে।

রোববার বিকেলে তাকে টাঙ্গাইলের জুডিশিয়ালম্যাজিস্ট্রেট মাহাবুবা নওরিনের আদালতে হাজির করা হলে সেখানে হত্যাকন্ডের দায় স্বীকার করে জবানবন্দি দেয়। জবানবন্দিতে সে তার মায়ের পরকীয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে হত্যা করেছে বলে উল্লেখ করেন।

মির্জাপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) শ্যামল কুমার দত্ত জানান, ঘটনার ১২ ঘন্টার মধ্যে কাওসারকে গ্রেফতার করে আদালতে হাজির করা হলে মায়ের পরকীয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে এই হত্যাকান্ড ঘটিয়েছে বলে স্বীকারোক্তি দিয়েছে।

Related Articles