নাগরপুরে চতুর্থ শ্রেনীর ছাত্রকে পিটিয়েছে শিক্ষক

নাগরপুর প্রতিনিধি : টাঙ্গাইলের নাগরপুরে রেজা ইসলাম নামের চতুর্থ শ্রেনীর এক ছাত্রকে স্কেল দিয়ে পিটিয়ে জখম করার অভিযোগ উঠেছে ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে। নির্যাতনের শিকার স্কুল ছাত্র রেজা ইসলাম (১০) উপজেলার মামুদনগর ইউনিয়নের চারাবাগ গ্রামের আব্দুর রহমানের ছেলে।
মঙ্গলবার বিকেলে মামুদনগর সরকারি মডেল প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এ ঘটনাটি ঘটে। এ ঘটনায় বুধবার সকালে স্কুল ছাত্রের বাবা আব্দুর রহমান প্রতিকার চেয়ে অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন।
নির্বাহী কর্মকর্তা কার্যালয় ও আহত স্কুল ছাত্রের পরিবার সূত্র জানায়, সহপাঠির সাথে দুষ্টমির অভিযোগে ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল জলিল স্কুল ছাত্রকে হাঁটু গেড়ে বসিয়ে (নিল ডাউন) বর্বরোচিত ভাবে স্কেল দিয়ে পিটিয়ে জখম করে। নির্যাতনের এক পর্যায়ে ওই ছাত্রের পরনের প্যান্ট (স্কুল ড্রেস)  ছিড়ে দ্বিগম্বর হলেও প্রধান শিক্ষকের নির্যাতনের হাত থেকে অসহায় শিশু রেজা ইসলাম রেহাই পায়নি বলে অভিযোগে জানা যায়।
স্কুল ছাত্রের বাবা আব্দুর রহমান জানান, তার ছেলে চতুর্থ শ্রেনীর ছাত্র মো. রেজা ইসলাম মঙ্গলবার সকালে প্রতিদিনের ন্যায় স্কুলে যায়। বিকেল পৌনে চারটার দিকে দুষ্টমির ছলে রেজা ইসলামের হাতে সামান্য আঘাত লাগে এক সহপাঠির মুখে। এ ঘটনায় প্রধান শিক্ষক আব্দুল জলিল ক্ষুদ্ধ হয়ে তার ছেলেকে নিল ডাউন করে স্কেল দিয়ে পিটিয়ে একপর্যায়ে তাকে দ্বিগম্বর করে ফেলে। পরে বিকেল সাড়ে চারটার দিকে তাকে (স্কুল ছাত্র) টাওয়াল পড়িয়ে স্কুল থেকে বাড়ি পাঠিয়ে দেয়া হয়।
এ বিষয়ে নাগরপুর উপজেলা নির্বহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আসমা শাহীন জানান, এ ব্যপারে লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্তপূর্বক বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা নেয়া হবে।
অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক আব্দুল জলিল ছাত্র নির্যাতনের ঘটনা স্বীকার করে বাংলানিউজকে জানান, সহপাঠির গায়ে আঘাত করার কারনে এবং পরিস্থিতি শান্ত রাখার স্বার্থে ওই ছাত্রকে শাসন করা হয়েছে। তবে নির্যাতনের এক পর্যায়ে দ্বিগাম্বর হওয়ার ঘটনান তিনি অস্বীকার করেন।

Related Articles