নামাজের স্থান বেছে নিচ্ছেন মাদক ব্যবসায়ীরা!

ম.কণ্ঠ ডেস্ক : মাদক বিরোধী অভিযানের মধ্যেও চলছে ইয়াবা পাচার ও সরবরাহ। আর এজন্য মাদক ব্যবসায়ীরা বেছে নিচ্ছেন ধর্মীয় পবিত্র স্থানকে। রাজধানীর যাত্রাবাড়ি এলাকার ওয়াক্তিয়া মসজিদ থেকে এক ইয়াবা ব্যবসায়ীকে হাতেনাতে আটকের পর তার দেয়া তথ্যে ধরা পড়ে আরো তিনজন।

উদ্ধার হয় ২৮ হাজার পিস ইয়াবা। পুলিশ বলছে, ধর্মীয় লেবাস নিয়ে মসজিদে বসে ইয়াবা পাচার করলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সন্দেহ করবে না- এমন ধারণা থেকেই নামাজের স্থানকে বেছে নিচ্ছে ইয়াবা কারবারীরা।

ট্রাক চালক বলেন, ‘আমি মাল লুকানোর কথা কিছু জানি না। আমারে গাড়ি যে জায়গায় রাখতে বলে আমি সেখানেই রাখি।’

পুলিশ বলছে, ‘শহিদুল্লাহ ইয়াবার বড় বড় চালান নিয়ে এর আগেও বেশকবার ঢাকায় এসেছিল। তার কিছু নিয়মিত ক্রেতাও রয়েছে। এখন কড়াকড়ির মাঝেও পুরনো গ্রাহকদের ধরে রাখতেই ২৮ হাজার ইয়াবা নিয়ে ঢাকায় আসেন তিনি।’

ঢাকা মহানগরের উপ কমিশনার মশিউর রহমান বলেন, ‘আমরা জেনেছি, মসজিদে বিভিন্ন সময় মানুষ জঙ্গিবাদের জন্য বিভিন্ন বার্তা দিতেন। আর এখন দেখি এসব পাপী আলেমেরা মসজিদকেও ব্যবহার করে ইয়াবা বিক্রির কেন্দ্র হিসেবে। উনি ১ লাখ হাজার ইয়াবা পর্যন্ত বিক্রি করেছে।’

পুলিশ জানায়, ‘গ্রেফতার শহিদুল্লাহ টেকনাফের একটি মাদ্রাসা থেকে হাফেজি পড়া শেষ করে চট্টগ্রামের পটিয়া এবং ভারতের দেওবন্দ মাদ্রাসায় পড়াশোনা করে। অল্প সময়ে অধিক টাকা আয়ের লোভ থেকে জড়িয়ে পড়ে ইয়াবা ব্যবসায়।’

Related Articles