জাতীয় দলের ক্রিকেটার হতে চান নবম শ্রেণির ছাত্র লাবিব অদ্রি

এস.এম আওয়াল মিয়া:

ছোট বেলা থেকেই ক্রিকেটের খুব ভক্ত তিনি। অনেকেই ফুটবল, কাবাডি খেললেও ওসব খেলার প্রতি তার কোন আগ্রহ নেই। ক্রিকেট খেলাই তার কাছে খুব ভাল লাগে। এছাড়াও টিভিতে শাকিব, তামিমদের খেলা দেখে তিনি বড় হয়েছেন। তাই শাকিব তামিরাই তার অনুপ্রেরণা। তিনি একজন অলরাউন্ডার খেলোয়ার। জাতীয় দলের খেলোয়ার হতে প্রতিনিয়ত চালিয়ে যাচ্ছেন অনুশীলন। তাই জাতীয় দলের খেলোয়ার হতে সকলের দোয়া চেয়েছেন নবম শ্রেণির ছাত্র পরীক্ষার্থী লাবিব অদ্রি। তিনি টাঙ্গাইল সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মীর মোশারফ হোসেনের একমাত্র ছেলে ও মিরপুর মডেল স্কুল এন্ড কলেজের নবম শ্রেণির ছাত্র ।

লাবিব অদ্রি জানান, অন্য সব খেলার চেয়ে লাবিব অদ্রি’র ক্রিকেট খেলার সাথে গভীর প্রেম রয়েছে। সেখান থেকে ক্রিকেটার হওয়ার আগ্রহ সৃষ্টি হয় তার। সেই আগ্রহ থেকেই জাতীয় দলের খেলোয়ার হতে চান তিনি। তাই চার বছর আগে থেকে কিশোরগঞ্জ থেকে ক্রিকেটের অনুশীলন শুরু করে। বর্তমানে তিনি অলরাউন্ডার খেলোয়ার। ২০১৮ সালের শেষের দিকে তার নেতৃত্বে ইন্টার স্কুল খেলায় তাদের স্কুল চ্যাম্পিয়ন হয়। সেই খেলায় তিন ম্যান অব দ্যা ম্যাচ হয়। ২০২০ সালের ডিসেম্বরে টাঙ্গাইলে ফাস্ট ডিভিশন খেলায়ও অংশ নিয়েছেন তিনি। প্রতিদিন সদর থানা ক্যাম্পাসে তার বাসার সামনে তার বন্ধুদের সাথে বিকেল ৩ টা হতে ৬ টা পর্যন্ত অনুশলীন করেন। ব্যক্তিগত প্রয়োজন হলে মাঝে মাঝে সকাল ১১ টা থেকে দুপুর পর্যন্ত অনুশীলন করেন তিনি।

তিনি আরও জানান, নিজের পড়াশোনা ঠিক রেখেই প্রতিনিয়ত খেলার অনুশীলন চালিয়ে যাচ্ছেন। পরিবার থেকে প্রথম দিকে খেলতে নিষেধ করে। পরে তার খেলার মান দেখে বর্তমানে পরিবার থেকে উৎসাহ দিচ্ছেন। উৎসাহ পেয়ে তার খেলার গতি আরও বেড়ে গেছে।
দৈনিক মজলুমের কণ্ঠের সাথে একান্ত সাক্ষাতকারে লাবিব অদ্রি বলেন, পড়াশোনা বা যে কোন পেশার পাশাপাশি প্রতিটি মানুষের খেলাধুলার প্রয়োজন আছে। প্রতিনিয়ত খেলাধুলা করলে শরীর সুস্থ এবং মনও ভাল থাকে। তাই ছোট থেকেই ক্রিকেট আমার খুব ভাল লাগে। আমি অল রাউন্ডার হলেও ব্যাটিং এর চেয়ে বোলিং করতে ভাল লাগে। আমার আম্মাা প্রতিনিয়তই বলেন, ভাল খেলোয়ার হওয়ার জন্য খেলায় অংশ নেও। তারপরও মার চেয়ে বাবার কাছ থেকে উৎসাহ ও সহযোগিতা বেশি পাই। আমার যখন যা দরকার, মাকে না বলেই বাবা কিনে দেন।

এ বিষয়ে সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মীর মোশারফ হোসেন বলেন, প্রত্যেকটি মানুষের কোন না কোন খেলার প্রতি আগ্রহ থাকে। আমার ছেলের আছে ক্রিকেটের প্রতি। আমার ছেলের জন্য সকলের কাছে দোয়া চাই। এছাড়াও সুস্থ সবল ও ভাল মনের অধিকারী হতে হলে খেলার কোন বিকল্প নেই। খেলাধুলা মানুষকে মাদক ও সন্ত্রাস থেকে দূরে রাখতে সহায়তা করে।

 

মজলুমের কণ্ঠ / ৪ জানুয়ারি / আর.কে)

সংবাদটি শেয়ার করুন

Related Articles