পুলিশের আঘাতে আহত রিক্সাচালকের পাশে দাড়ালেন পুলিশ সুপার সঞ্জিত কুমার রায়

নিজস্ব প্রতিবেদক : টাঙ্গাইলে পুলিশের আঘাতে আহত সেই রিক্সাচালকের চিকিৎসা খরচ বহন করবে টাঙ্গাইল জেলা পুলিশ। এছাড়াও এই ঘটনায় সে যেন সুবিচার পায় তারও আশ্বাস দিয়েছেন টাঙ্গাইলের পুলিশ সুপার সঞ্জিত কুমার রায়।

মঙ্গলবার (১৪ মে) দুপুরে টাঙ্গাইল পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে আয়োজিত এক প্রেস ব্রিফিংয়ে পুলিশ সুপার সঞ্জিত কুমার রায় এসব কথা জানান। এসময় রিক্সাচালককে চিকিৎসা খরচ বাবদ নগদ ১০ হাজার টাকা দেয়া হয়।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) আহাদুজ্জামান মিয়া, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মাসুদ মুনীর, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) মো. শফিকুল ইসলাম, আহত রিক্সাচালকের ভাই ও এলাকার জনপ্রতিগণ।

অপরদিকে টাঙ্গাইল পুলিশ হাসপাতালের মেডিক্যাল অফিসার আবিবুর রহমান জানান, এসপি স্যারের নির্দেশ মতো আমি আহত রিক্সাচালকের হাত এক্স-রে করেছি। সেখানে কোন ভাঙ্গা বা ফাটল নাই। এখন উনাকে ওষুধ কিনে বাড়িতে পাঠিয়ে দিচ্ছি।

পুলিশ সুপার সঞ্জিত কুমার রায় জানান, আহত রিক্সাচালক সুস্থ্য না হওয়া পর্যন্ত আমরা তার সকল চিকিৎসা খরচ ও পরিবারের ব্যয় বহন করব। এসময় তিনি আরো জানান, অভিযুক্ত গাড়ি চালক আবুল খায়েরের বিরুদ্ধে যথাযত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সোমবার সকালে শহরের আকুর-টাকুর পাড়া টাঙ্গাইল প্রেসক্লাবের সামনে এক রিক্সাচালককে মারার অভিযোগে পুলিশের ভাবমূর্তি রক্ষার্থে পুলিশ সুপার এই সিদ্ধান্ত নেন।

উল্লেখ্য, স্টেডিয়াম মার্কেট থেকে রিক্সা মেইন রোডে আসে এবং পুলিশের গাড়িটি সদর থানা থেকে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ের দিকে যাওয়ার সময় বেজে পড়ে। এমন সময় ড্রাইভার নেমে এসে রিক্সাচালককে লাঠি দিয়ে তার হাতে আঘাত দিলে হাতটি নীলাফুলা জখম হয়। ঘটনাটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে টাঙ্গাইল জেলা পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নজরে আসলে তাৎক্ষণিক অভিযুক্ত ড্রাইভারকে টাঙ্গাইল পুলিশ লাইনে ক্লোজ করা হয়। এছাড়া অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মাসুদ মুনীরকে প্রধান করে একটি তদন্ত টিম গঠন করা হয়।

Related Articles