ভোট পর্যবেক্ষণ, দুপুরের পর বিএনপির প্রেস ব্রিফিং

নিউজ ডেস্ক

ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করছেন বলে জানিয়েছেন বিএনপির সিনিয়র নেতারা। গুলশানে দলের চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে স্থায়ী কমিটির কয়েকজন সদস্য ও কেন্দ্রীয় নেতারা অবস্থান করছেন। তারা জানিয়েছেন, শনিবার (১ ফেব্রুয়ারি) সকাল থেকে শুরু হওয়া ভোটে নানা অনিয়মের খবর পাচ্ছেন তারা। তবে আজ দুপুরের আগে তারা আনুষ্ঠানিক কোনও মন্তব্য করতে চান না।

শনিবার সকাল সোয়া ১০টার দিকে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর  গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, সিনিয়র নেতাদের সঙ্গে আলোচনা করে আরও তথ্য নিয়ে ব্রিফ করবে বিএনপি। সিটি ভোটে দলের পরিচালনা কমিটির আহ্বায়ক ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন ও ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বক্তব্য দেবেন, তবে সেটা দিতে দুপুর হতে পারে।

সকাল ১০টার আগেই মির্জা ফখরুল, মওদুদ আহমদ, শামা ওবায়েদ গুলশান কার্যালয়ে আসেন। এরপর সকাল ১০.২৫ মিনিটের দিকে আসেন ড. আব্দুল মঈন খান, সকাল সাড়ে ১০টায় কার্যালয়ে পৌঁছান ড. মোশাররফ হোসেন।

সকালে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে (ডিএনসিসি) দলের প্রার্থী তাবিথ আউয়াল ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র প্রার্থী ইশরাক হোসেনের সঙ্গে কথা বলেন মির্জা ফখরুল। তারা নিয়মিত মহাসচিবকে নির্বাচনের আপডেট জানাচ্ছেন।

বিএনপি নেতারা জানান, ঢাকা সিটি ভোটে তাদের কাছে নানা অনিয়মের খবর আসছে। দলের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক শামা ওবায়েদ জানান, ‘দলের নেতারা সিদ্ধান্ত নেবেন কখন ব্রিফ হবে। তবে এখন পর্যন্ত আমরা পোলিং এজেন্টদের বের করে দেওয়ার খবর পেয়েছি। ভয়ভীতি দেখিয়ে বিএনপির এজেন্টদের বের করে দেওয়ার খবর এসেছে। ভোটারদের মধ্যে ভীতি ছড়ানোর চেষ্টা করা হচ্ছে।’

বিএনপির সিনিয়র এক নেতা জানান, ব্রিফিং গুলশান নাকি নয়া পল্টনে হবে তা এখনও ঠিক হয়নি। আরও পরে জানা যাবে।

এদিকে, নয়া পল্টনে বিএনপির কার্যালয়ের নিচে ও ভেতরে মিলিয়ে অন্তত দুই শতাধিক নেতাকর্মী আছেন। দলের চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইং সদস্য শায়রুল কবির খান  বলেন, ‘মহাসচিব মির্জা ফখরুল কার্যালয়ে আছেন। অনেকে ভোট দিতে না পেরে ফিরে এসেছেন। কেউ কেউ ভোট দিতে না পারার অভিযোগ করছেন।’ যারা ফিরে এসেছে তাদের আবারও ভোট দিতে যাওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

(মজলুমের কণ্ঠ/১ ফেব্রুয়ারি/আর.কে)

সংবাদটি শেয়ার করুন

Related Articles